দেখতে দেখতে পেরিয়ে গেলো অনলাইন ক্যারিয়ারের ৭টি বছর!! - সজীব রহমান - ব্লগ

দেখতে দেখতে পেরিয়ে গেলো অনলাইন ক্যারিয়ারের ৭টি বছর!!

সেই ২০০৮ সাল থেকে শুরু এই অনলাইন ক্যারিয়ার। দিন গুলোকে কেমন যেন খুব কাছের মনে হয়। মনে হয় এইতো সেদিন সাইবার ক্যাফেতে বসেই শিখেছি সব কিছু। সব সৃতি এখনো সুস্পষ্ট। কিন্তু হিসাব করতে গেলে দেখা মেলে যে ৭ বছর পার করে এসেছি আমার এই ক্যারিয়ারের। সাধারন ভাবে ধরলে আসলেই বেশ সময় পার করেছি। জেনেছে, শিখেছি, শেখানোর চেষ্টা করেছি এই সময়ের মধ্যে। ২০০৭ থেকে ইন্টারনেট সম্পর্কে জানলেও হাতেখড়ি শুরু হয় ২০০৮ এর মাঝামাঝি এই এপ্রিলেই।

এই ৭ বছরে হারানোর চেয়ে পাওয়াই বেশি। প্রতিদিন কিছু না কিছু শিখেই চলেছি। কষ্ট করতে হয়েছে এটা ঠিক, তবে এখন মনে হয় সেই কষত না করলে আজ এ পর্যায়ে আসতে পারতাম না। যাইহোক এবার কিছু ছবি আপলোড এর পালা, ২০০৮ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত কিছু সৃতিচরন করতেই এই ফটো ব্লগ

২০০৮ সাল – কেবল জানলাম ফ্রিল্যান্সিং কি

sojib-rahman-2007

২০০৭ সালে তোলা এটাই ছিলো আমার প্রথম ও শেষ ছবি। সে সময়ে একটা এমপি ফাইভ প্লেয়ার দিয়ে তুলেছিলাম।

২০০৯ সাল – সাইবার ক্যাফে যাতায়েত শুরু

sojib-rahman2008

তখনেই বুঝেছিলাম, লেগে থাকলে একদিন না একদিন এই ফ্রিল্যান্সিং নামক বস্তু থেকে জীবনে কিছু করা যাবে। সেই কারণে একটু সময় পেলেই চাকুরি, কলেজ ফাঁকি দিয়ে সাইবার ক্যাফেতে ঢুঁ দিতাম।

২০১০ সাল – কাজ করতে করতে পুরোই শেষ

sojib-rahman-2010

এই ছবি এখন আমি নিজে দেখলেও মাঝে মাঝে আঁতকে উঠি। কি চেহারা বানিয়েছিলাম রে বাবা!! ২০১০ এ কিনেছিলাম নিজের কম্পিউটার। তাই দিন নেই রাত নেই, খেয়ে না খেয়ে কাজ করে গিয়েছি। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ঘুমাতাম মাত্র ৩-৪ ঘণ্টা। থাকতাম মেসে তাই খাওয়ার অবস্থা ছিলো সেই রকম খারাপ।  এই বছরটি ছিলো আমার জন্য খুব কঠিন একটি বছর এবং নিজেকে গড়ে তোলার বছর। প্রচুর বাংলায় লেখার ঝোঁক শুরু হয় আর লিখতেও থাকি টেকটিউন্সে একের পর এক টিউন। এই ছবিটি বছরের শেষের দিকে টেকটিউন্সের প্রথম মিটাপ থেকে তোলা।

২০১১ – কাজ করছি ধুমিয়ে

sojib-rahman-2011

শুরু হয়ে গেলো আমার প্রফেশনাল ক্যারিয়ার… নতুন নতুন ক্লায়েন্ট, নিজের ব্লগিং আর ভার্চুয়াল চাকুরি করাতে ব্যাস্ত থাকতাম সারা রাত, সারা দিন। এই সময়ে শিখেছি কিভাবে গুছিয়ে কাজ করতে হয়। এই সময়ে প্রচুর পড়তাম আর যা জানতাম তা শেয়ার করার চেষ্টা করতাম। তখন পর্যন্ত নিজ জেলা ঝিনাইদাহে বসেই করতাম এই সব কাজ। আর নেট ছিলো গ্রামীণ ফোন এর ১২৮কেবিপিএস এর 😀

২০১২ সাল – কাজ, মিটআপ, ঘরাঘুরি

যদি বলতে হয় তাহলে ২০১২ সাল ছিলো আমার জীবনের এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সুখের একটি বছর। সব সব দিকে সফলতা পাওয়া শুরু করেছিলাম ঠিক তার সাথে পাল্লা দিয়ে চলেছিলো অনলাইন কমিউনিটির সাথে মিটআপ , ঘোরাঘুরি, আড্ডা সহ অনেক কিছু। এই বছরেই পরিচয় হয়েছিলো আমার অনেক প্রিয়মানুষের সাথে। জীবনে এই প্রথম মনে হয় এতো আনন্দে দিন গুলো পার করেছিলাম সে সময়ে। কি হয়নি সেই বছরে, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন গ্রুপের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উজ্জাপন, টেকটিউন্স এর টপ টিউনারদের চট্রগ্রাম ভ্রমন, ই এশিয়ায় সব নতুনদের সাথে আড্ডা, লিনাক্স পাথশালার পাভেল ভাইয়ের সাথে বান্দরবন, রাঙ্গামাটি ট্যুর আরো অনেক কিছু। মোটকথা এমন সময় আর ২য়টি হবে না সামনে।

Sojib-Rahman-2012 (1)

চট্রগ্রাম মিটআপ

Sojib-Rahman-2012 (2)

ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড সম্মেলন এ আড্ডা

Sojib-Rahman-2012 (3)

বান্দরবন ট্যুর

Sojib-Rahman-2012 (4)

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বিডির বর্ষপূর্তি

২০১৩ সাল – অনেক কিছু হারানোর বছর

এই বছরকে আমার জীবনের হারানোর বছর বললে ভুল হবে না। কারণ এই বছরে আমি হারিয়েছি অনেক কিছু। তার মধ্যে সবচেয়ে বড় সম্পদ হারিয়েছি আমার বাবা কে। জুলাই মাসে বাবাকে বিদায় দিতে হয়েছে পৃথিবী থেকে। যে ক্ষতি কোনদিন আর পূরণ করতে পারবো না। অনেক মিস করি আমার বাবা কে।

my-father

এছাড়াও এই বছরে আমার কিছু মারাত্মক ভুলের কারণে অনেক বিপদে পড়ে যাই। কিছু ভুল সিধান্তে অনলাইন ক্যারিয়ার প্রায় শেষ হয়ে যাবার পর্যায়ে চলে আসে। সেই সময় বেশ কিছু দিন নিজেকে কন্ট্রোল করতে পেরেছিলাম না। হতাশা ঘিরে ধরেছিলো চারিদিক থেকে। মনে হচ্ছিলো যে আর বুঝি আমাকে দিয়ে সম্ভব নয়। তবুও হাল ছেড়ে দেই নি সে সময়। আবার নতুন উদ্দামে কাজ শুরু করেছিলাম। আর বছরের মাঝের দিকে আবারো ফিরে পেয়েছিলাম আমার আগের সেই হারানো ক্যারিয়ার কে।

sojib-rahman-2013

২০১৪ সাল –  প্রফেশনাল জীবন শুরু

বছরের প্রথম সূর্যদয়ের সাথে সাথে পা দিলাম ঢাকা শহরে। এই প্রথম ঢাকায় আসলাম স্থায়ী ভাবে কিছু করার জন্য। চোখে অনেক স্বপ্ন নিয়ে, বুক ভরা আশা নিয়ে আর মনে দৃঢ় বল নিয়ে। শুরু করেছিলাম ওয়েবকোড এর সাথে আমার নতুন পথচলা। এর আগে একাকী কাজ করলেও এখানেই প্রথম একসাথে অনেক গুলো এক্সপার্ট এর সাথে নিজের কাজ শেয়ার করার সুযোগ পেয়েছিলাম। sojibrahman

বেশ চ্যালেঞ্জিং একটি বছর ছিলো। নিজেকে ঢাকার পরিবেশের সাথে মানিয়ে নেওয়া, ঢাকার ট্র্যাফিক জ্যামকে উপভোগ করা, সকাল ৮টায় বের হয়ে রাত ১১ টায় বাসায় ফেরা ইত্যাদি। ব্যাবসায়িক মনভাব নিয়েই শুরুটা করলেও ধীরে ধীরে বুঝতে পেরেছিলাম ব্যাবসা এতো সহজ না আর ব্যবসা করার মত অবস্থা এখনো হয় নি আমার। আর সেই সাথে একটা স্বপ্নের টিম ভাঙ্গনের প্রথম ধাপ ও শুরু হয় এই বছরে। নিচের ছবি থেকে তাই এই বছরেই বিদায় নেন কিছু ব্যক্তি।

sojib-rahman-in-webcode

ওয়েবকোড টিম

webcode-team

এছাড়াও এই বছরে বাংলাদেশ অনলাইন প্রফেশনাল নিয়ে ব্যাস্ততা ছিলো উল্লেখযোগ্য। বছরের শেষের দিকে বাংলাদেশ ইন্টারনেট প্রফেশনাল কনফারেন্স এ “সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বিডি” গ্রুপের জন্য সম্মানিত হওয়া ছিলো অন্যতম।

bangladesh-internet-professional-conference-2015

 

২০১৫ সাল – এক্সপেরিমেন্ট, ব্যবসা এবং নতুন কিছু পাওয়া

বলতে গেলে এই বছরে আমি যা শিখেছি সেটা গত ৫ বছরেও শিখতে পারিনি। সেটি কাজের চেয়ে ব্যবসায়িক বিষয়ে বেশি। কাছ থেকে অনেক কিছু দেখেছি, বুঝেছি এবং শিখেছি যা নির্ঘাত সামনে দিন গুলোতে জ্বালানী হিসাবে কাজে দিবে। ব্যবসায়ীক উত্থান, পতন ও নীরবতা সবই দেখেছি এই বছরে। চিন্তাভাবনা ও মানুসিকতার পরিবর্তন ও ছিলো চোখে পড়ার মত।

বিআইপিসি কনফারেন্স চট্রগ্রাম

বিআইপিসি কনফারেন্স চট্রগ্রাম

আর কাজের ক্ষেত্রে যে সকল ট্যাকনিক গুলো বিগত বছরগুলোতে প্রয়োগ করতে পারি নি তার কিছু প্রজেক্ট এ বছরে হাতে নিয়েছিলাম এবং আল্লাহের রহমতে সফলতাও পেয়েছি। এছাড়াও বছরের শেষে কয়েকজন মিলে সেইরকম একটা ভ্রমণ ছিলো সেন্টমার্টিন, খাগড়াছড়ি ও রাঙ্গামাটিতে। যেটা খুব সাহায্য করেছে নতুন উদ্দামে কাজ করার জন্য। \

রাঙ্গামাটি ভ্রমণ

রাঙ্গামাটি

 

সেন্টমার্টিন ভ্রমণ

সেন্টমার্টিন

 

12605462_1214493865231921_4679175952106037938_o

 

২০১৬ সাল – নতুন কিছু করা…

বছরের প্রথমেই দীর্ঘ ২বছরের পথচলার ইতি টেনেছি ওয়েবকোড এর সাথে। একগাদা অভিজ্ঞতা এবং অনেক কিছু পাওয়া নিয়ে নতুন করে এই বছর সাজানোই প্রথম লক্ষ্য। এই বছরে অনেক বড় পরিকল্পনা রয়েছে কাজ নিয়ে, যা করার জন্য এতোদিন মুখিয়ে ছিলাম। বেশ অভিজ্ঞতা হয়েছে গত ২ বছরে, এখন সেটাকে বাস্তবায়ন করাই এই বছরের প্রধান উদ্দেশ্য। আর সেই সাথে নিয়মিত ব্লগিং করা, অভিজ্ঞতা শেয়ার এবং সবার জন্য নতুন কিছু করার প্রতিজ্ঞা নিয়েই ২০১৬ কে অতিবাহিত করার পরিকল্পনা নিয়েছি। দেখা যায় আল্লাহের রহমতে কতদূর পৌঁছাতে পারি। 🙂

সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬



Leave Your Comments